ঢাকা, বাংলাদেশ | মঙ্গলবার, ২৫ জুন, ২০২৪ খ্রিষ্টাব্দ

শিরোনামঃ

   দেশের বাজারে আরও বেড়েছে স্বর্ণের দাম    ঢাকাসহ রাতে ১০ অঞ্চলে ঝড়ের আভাস    নরসিংদীতে ৩ বছরের শিশুর মৃতদেহ উদ্ধারসহ ৩ জন আটক    হজ ক্যাম্পে কোনো ধরনের হয়রানি ও ভোগান্তির স্বীকার হননি –ধর্মমন্ত্রী    বেনজীরের ৭ পাসপোর্টের সন্ধান মিলল    আজকে দেশের তাপমাত্রা    ঈদযাত্রায় সড়কে নিহত হয়েছেন ২৩০ জন: বিআরটিএ    আগামী ১০ জুলাই গ্যাটকো দুর্নীতি মামলায় অভিযোগ গঠন শুনানি    পটুয়াখালীতে পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু    এ সফর ছিল সংক্ষিপ্ত, কিন্তু অত্যন্ত ফলপ্রসূ –প্রধানমন্ত্রী    ফেনীতে খুন হওয়া সুমন ছিলেন মা-বাবার শেষ অবলম্বন    পুঁজিবাজারে সূচকের সঙ্গে বাড়ল লেনদেনও    ঈদের মাসে ২৩ দিনে প্রবাসী আয় এল ২০৫ কোটি ডলার    বিয়ের জন্য সাঁজতে পার্লারে গিয়ে তরুণী নিহত সাবেক প্রেমিকের গুলিতে    অভিন্ন নদীর টেকসই ব্যবস্থাপনা নিয়ে আলোচনা হয়েছে: প্রধানমন্ত্রী

দেশে দ্বিতীয় বার জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, সাধারণ ও সংরক্ষিত সদস্য নির্বাচন আগামী ১৭ অক্টোবর। পার্বত্য তিন জেলা বাদে বাকি ৬১ জেলায় এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

গাইবান্ধা জেলা পরিষদ নির্বাচনে ২১ পদের বিপরীতে মোট ৩৩ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। ইউনিয়ন পরিষদ, পৌরসভা, উপজেলা পরিষদের নির্বাচিত প্রতিনিধিরা ভোট দেবেন। প্রার্থীদের মাঝে প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। আসছে আগামী ১৭ অক্টোবরে জেলা পরিষদ নির্বাচনে ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হবে।
প্রতিটি জেলা পরিষদে একজন চেয়ারম্যান, ১৫ জন সাধারণ সদস্য ও ৫ জন সংরক্ষিত সদস্য নির্বাচিত হবে।
চেয়ারম্যান এক পদের বিপরীতে তিনজন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এছাড়া সংরক্ষিত নারী সদস্য ৫ পদের বিপরীতে ৮ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। সাধারণ সদস্য ১৫ পদের বিপরীতে ২২ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

এ নির্বাচনে জেলা পরিষদের ২ নং সাদুল্ল্যাপুর ওয়ার্ডের সদস্য প্রার্থী অধ্যক্ষ এস এম আব্দুর রহমান একজন সাধারণ সদস্য বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।
চেয়ারম্যান পদে প্রতীক পাওয়া প্রার্থীরা হলেন আওয়ামী লীগ মনোনীত আবু বকর সিদ্দিক (তালগাছ), সাবেক চেযারম্যান আতাউর রহমান (ঘোড়া) ও শরিফুল ইসলাম (হেলিকপ্টার)।
সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে কল্পনা রাণী (ফুটবল), তৌহিদা বেগম (দোয়াত কলম), মাজেদা বেগম (টেবিল ঘড়ি), আরিফা আকতার (মাইক), রোজীনা নাহিদ ফারজানা (দোয়াত কলম), উম্মে জাহান (টেবিল ঘড়ি), আফরুজা খাতুন (মাইক) ও রুনা আরজু মোনোয়ারা বেগম (হরিণ) প্রতীক নিয়ে প্রার্থীরা প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন।
সাধারণ সদস্য পদে প্রতীক পাওয়া প্রার্থীরা হলো আব্দুর রশীদ (হাতি), আলতাফ হোসেন (তালা), এমদাদুল হক (বৈদ্যুতিক পাখা), জামিউল আনছারী (টিউবওয়েল), এস এম আনোয়ারুল কবির (টিউবওয়েল), শহিদুল ইসলাম (তালা), সাইফুর রহমান মণ্ডল (অটোরিকশা), জাহাঙ্গীর আলম (তালা), তহিদুল আমিন মণ্ডল সুমন (টিউবওয়েল), মনিরুজ্জামান (হাতি), আবু সুফিয়ান মণ্ডল (তালা), আব্দুল মতিন মোল্লা (বৈদ্যুতিক পাখা), আব্দুল হান্নান আজাদ (টিউবওয়েল), জাহাঙ্গীর আলম (হাতি), এটিএম সাখাওয়াৎ হোসেন রুবেল (বৈদ্যুতিক পাখা), আব্দুল কুদ্দুস আকন্দ (তালা), আশরাফুল ইসলাম (টিউবওয়েল), শাখাওয়াত হোসেন (হাতি), শামসুজ জোহা (অটোরিকশা), আমজাদ হোসেন মিজান (তালা), টুকু মিয়া (টিউবওয়েল), শুকুর আলী ফিরোজ (হাতি)। প্রতীক পাওয়ার পর হতে নির্বাচনের মাঠ জমে উঠেছে। নির্বাচিত প্রতিনিধিরা মাঝে ভোটার সীমাবদ্ধ হওয়ায় ভি আই পি স্টাইলে প্রচার-প্রচারণা চলমান।

ইউনিয়ন, পৌরসভা, উপজেলা পরিষদে নির্বাচিত প্রতিনিধির মাঝে ভোটের উৎসবের আমেজ চলমান। উৎসব মুখর ভাবে পরিবেশে নির্বাচিত প্রতিনিধিদের ভোটে আসন্ন আগামী জেলা পরিষদ গঠন হবে। সৎ ও নিষ্ঠাবান ব্যক্তিকে নির্বাচিত করে জেলার উন্নয়ন বাস্তবায়ন হবে বলে মনে করেন সাধারণ জনতা।


প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও
কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।