ঢাকা, বাংলাদেশ | বুধবার, ২৪ জুলাই, ২০২৪ খ্রিষ্টাব্দ

শিরোনামঃ

   চট্টগ্রামে কোটা সংস্কার আন্দোলনে গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত দুই তরুণ    কোটা সংস্কার আন্দোলন ঘিরে সংঘর্ষে এখন পর্যন্ত ১১ জনের মৃত্যুর খবর    আন্দোলনকারীদের পূর্ণ সমর্থন জানিয়েছে জামায়াত    নরসিংদীতে কোটা আন্দোলনে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে স্কুলশিক্ষার্থী নিহত    নাটোরে মিছিলের প্রস্তুতির সময় ১৮ স্কুলছাত্রকে পুলিশে দিলেন প্রধান শিক্ষক    জুলাইয়ের ২১, ২৩ ও ২৫ তারিখের এইচএসসি পরীক্ষা স্থগিত    ছাত্রলীগ-কোটা আন্দোলনকারিদের সংঘর্ষ, ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক অবরোধ    কোটা আন্দোলনে রেসিডেনসিয়াল কলেজের শিক্ষার্থী ফারহান নিহত    শ্রীমঙ্গলে চাঞ্চল্যকর আইনজীবী হত্যাকাণ্ডে জড়িত ২জন গ্রেপ্তার    চট্টগ্রাম রেগুলেশন বাতিলের ষড়যন্ত্র বন্ধের দাবিতে মিছিল    চুয়াডাঙ্গায় শিক্ষার্থীদের সড়ক অবরোধ; ছাত্রলীগের হামলা    আজ বন্ধ থাক‌বে ভারতীয় ভিসা সেন্টার    উত্তরায় গুলিতে নর্দান বিশ্ববিদ্যালয়ের ২ শিক্ষার্থী নিহত    টাঙ্গাইলে আন্দোলনকারীদের সঙ্গে পুলিশের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া    মিরপুর ১০ নম্বরে সংঘর্ষ চলাকালীন পুলিশ বক্সে আগুন

মাদক দখলে রেখে বিক্রির সময় হাতেনাতে পুলিশের হাতে গ্রেফতার হওয়া এক শিশুকে তিন বছরের আটকাদেশ দিয়েছেন আদালত।

 রোববার সকালে বরগুনার শিশু আদালতের বিচারক ও সিনিয়র জেলা জজ মো. মশিউর রহমান খান এ রায় ঘোষণা করেন।

দণ্ডিত শিশু বরগুনা জেলার আমতলী উপজেলার মধ্য তারিকাটা গ্রামের মো. আব্দুর রহমানের ছেলে মোহাম্মদ মেহেদী হাসান (১৬)। রায় ঘোষণার সময় মেহেদী হাসান আদালতে উপস্থিত ছিল।

একইসঙ্গে শিশুকে যশোর শিশু সেইফহোমে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ওই আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর মো. মোস্তাফিজুর রহমান।

জানা যায়, দণ্ডপ্রাপ্ত শিশু ২০১৮ সালের ২০ এপ্রিল রাত অনুমান ১২ টার সময় আমতলী থানাধীন আড়পাংগাসিয়া ইউনিয়নের খুড়িয়ার খেয়াঘাট যাওয়ার পথে

কালু মুসল্লির বাড়ির সামনে পাকা রাস্তার উপরে ওই শিশুকে ৫৩ পিস ইয়াবাসহ পুলিশ গ্রেফতার করে।

মামলার বাদী আমতলী থানার পুলিশ এসআই সৈয়দ শফিউল হোসেন বলেন, ওই শিশু ইয়াবা ব্যবসার সঙ্গে জড়িত।

ঘটনার দিন রাত ১২টার পরে ওই শিশু ৫৩ পিস ইয়াবা বিক্রির উদ্দেশ্যে ঘটনাস্থল রাস্তায় দাঁড়িয়ে ছিল। আমাদের টহল পুলিশের সন্দেহ হলে শিশুকে আটক করি।

শিশুর দেহ তল্লাসি করে শিশুর কোমর থেকে একটি পলিথিনে মোড়ানো ৫৩ পিস ইয়াবা উদ্ধার করি।

মামলাটি উপপুলিশ পরিদর্শক ইমানুল ইসলাম ইমন তদন্ত শেষ করে ২০১৮ সালের ৩১ মে ওই শিশুর বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র আদালতে দাখিল করেন।

আদালত রায়ের অবজারভেশনে বলেন, এক শ্রেণির মাদক ব্যবসায়ীরা কম বয়সী শিশুদের ব্যবহার করেন। শিশুদের সাজা কম বিধায় মাদক ব্যবসায়ীরা এ পেশায় শিশুদের ব্যবহার করে।

রায়ে আরও উল্লেখ করেন, শিশুর বয়স বৃদ্ধি হলে বরগুনা কারাগারে থাকতে পারবে।

শিশুর আইনজীবী বলেন, এই শিশুকে স্থানীয় কোন্দলের কারণে ইয়াবা দিয়ে ফাঁসানো হয়েছে।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী পাবলিক প্রসিকিউটর মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, রায়ে আমরা সন্তুষ্ট।

ইদানিং শিশুদের অপরাধ প্রবণতা ক্রমশ বেড়েই চলছে। শিশুরা অপরাধ করলে সাজা ভোগ করতে হয়।

এ ম্যাসেজটি সবার কাছে পৌঁছে গেলে অপরাধ প্রবণতা অনেকাংশে কমে আসবে।

আরও পড়ুন :

এনএএন টিভি


2 Replies to “মাদক মামলায় শিশুকে তিন বছরের আটকাদেশ”

Comments are closed.

প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও
কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।