ঢাকা, বাংলাদেশ | বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিষ্টাব্দ

শিরোনামঃ

   চুয়াডাঙ্গায় ক্লিনিক-ডায়াগনস্টিক সেন্টারে অভিযান ও জরিমানা    শপথ নিলেন সংরক্ষিত নারী আসনের এমপিরা    আন্তঃজেলা ছিনতাই চক্রের ৪ সক্রিয় সদস্য গ্রেফতার    বাঙ্গালীনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরন    চাঁপাইনবাবগঞ্জ এ ৫টি চোরাই বৈদ্যুতিক মিটারসহ গ্রেপ্তার-১    সাতক্ষীরায় ফাগুন সমীরণ ও পিঠা উৎসব অনুষ্ঠিত    রংপুরে মোবাইল কোর্ট অভিযান পরিচালনা, ১টি প্রতিষ্ঠানকে ৩ হাজার টাকা জরিমানা    চুয়াডাঙ্গায় আগুনে পু‌ড়ে ১৪টি ছাগলের মৃত্যু    বিরল ব্লাড ক্যান্সারে আক্রান্ত শিশু আরাবীর বাঁচর আকু‌তি; সক‌লের কা‌ছে সাহায্যর আবেদন    মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে ফ্যাশন ও উন্নত প্রযুক্তির সমন্বয়ে পণ্য তৈরিতে জোর হুয়াওয়ের    রমজানে অফিস চলবে ৯টা থেকে সাড়ে ৩টা পযর্ন্ত    দুর্ভিক্ষের কবলে পড়তে যাচ্ছে গাজার এক তৃতীয়াংশ মানুষ –জাতিসংঘ    আফ্রিকার দেশ মালিতে সেতু থেকে বাস নদীতে, নিহত ৩১    বান্দরবানে ধর্ষণের ঘটনায় পিতার যাবজ্জীবন কারাদণ্ড    “মফস্বল সাংবাদিকতায় শেলু’র অবদান স্মরণীয় হয়ে থাকবে”

যারা পেছন থেকে কলকাঠি নাড়ায়, তারা বেইমানদের ব্যবহার করে, কিন্তু রাখে না বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। 

তিনি বলেছেন, ‘১৯৭৫ সালে জাতির পিতাকে হত্যা করা হয়। জিয়াউর রহমানের সহায়তায় খন্দকার মোশতাক আহমেদ ক্ষমতা দখল করে। কিন্তু টিকতে পারেনি।

যারা পেছন থেকে কলকাঠি নাড়ায়, তারা বেইমানদের ব্যবহার করে, কিন্তু রাখে না। এটাই হলো বাস্তবতা। মোশতাককে বিদায় নিতে হয়।

আসল চেহারা বেরিয়ে আসে জিয়াউর রহমানের। একাধারে সেনাপ্রধান এবং নিজেকে রাষ্ট্রপতি ঘোষণা দেয় সে।’

শনিবার (২১ অক্টোবর) দুপুরে ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আইনজীবী মহাসমাবেশে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন,

‘আমরা যারা আপনজন হারিয়েছি, এদেশের নাগরিক হিসেবে বিচার পাওয়ার অধিকার আমাদের ছিল।

কিন্তু সে অধিকার থেকে আমাদের বঞ্চিত করা হয়েছে। ইনডেমনিটি আইন জারি করে,

শুধু ইনডেমনিটি অর্ডিন্যান্স জারি করা নয়, জিয়াউর রহমান জনগণের ভোট চুরি করে নির্বাচন প্রক্রিয়াও ধ্বংস করেছে।

তার হ্যাঁ/না ভোট- রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে সংবিধান এবং মিলিটারি আইন ভঙ্গ করে নিজে সেখানে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে। এরপর দল গঠনের মধ্য দিয়ে জনগণের সঙ্গে কারচুপি করে।’

তিনি আরও বলেন, ‌’৯৬ সালে যখন সরকার গঠন করি তখন থেকে আমাদের লক্ষ্য, দেশে যেন আইনের শাসন প্রতিষ্ঠিত হয়।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘জাতির পিতা দেশের মানুষের আর্থসামাজিক উন্নয়নের লক্ষ্য নিয়ে ছয় দফা দিয়েছিল। ছয় দফা যখন দিয়েছিল তখন তিনি ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি ছিলেন।

বাংলাদেশের মানুষ গণঅভ্যুত্থান চালিয়ে জাতির পিতাকে উদ্ধার করেছিল। তিনি বারবার গ্রেপ্তার হয়েছেন, অনেক সময় তাকে সাজাও দেওয়া হয়েছে। কিন্তু তিনি থেমে যাননি।

 

তিনি জানান, সত্তরের নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাওয়া সত্ত্বেও পাকিস্তানিরা বাঙ্গালিদের ক্ষমতায় আসতে দেবে না।

জাতির পিতা জানতেন এবং তার প্রস্তুতিও ছিল। ২৫ মার্চ যখন পাকিস্তানের হানাদার বাহিনী এ দেশের নিরস্ত্র মানুষের ওপর হামলা করে,

সঙ্গে সঙ্গে জাতির পিতা শেখ মুজিব যুদ্ধের ঘোষণা দেন।

এরপর সঙ্গে সঙ্গে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। অজানা স্থানে নিয়ে যাওয়া হয়।

জাতির পিতার নির্দেশ ও আহ্বানে সাড়া দিয়ে এদেশের মানুষ, যার যা কিছু আছে তাই নিয়ে শত্রু মোকাবিলা করে বাংলাদেশকে স্বাধীন করে।

আরও পড়ুন :

এনএএন টিভি


One Reply to “‘যারা পেছন থেকে কলকাঠি নাড়ায়, তারা বেইমানদের ব্যবহার করে, কিন্তু রাখে না’”

Comments are closed.

প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও
কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।